[Close]

আইপিএলে বোলিংয়ের অবিশ্বাস্য কিছু রেকর্ড


আর মাত্র চার দিন। এর পরেই শুরু হবে ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ফ্রাঞ্চাইজিভিত্তিক টি২০ টুর্নামেন্ট আইপিএলের একাদশ আসর। গত ১০ বছরে আইপিএল ক্রিকেট বিশ্বকে বেশ কিছু চমক দেখিয়েছে। এই আইপিএলের কারণেই আজ ক্রিকেট বিশ্বে অনেকে তারকা খ্যাতি পেয়েছেন।







আইপিএল এমন কিছু রেকর্ড উপহার দিয়েছে যা সত্যিই অবিশ্বাস্য।তবে কুড়ি-কুড়ি ক্রিকেট মানেই ক্রি জে নেমে শুরু থেকেই চালিয়ে খেলা। ব্যাকরণ মেনে ‘ক্ল্যাসিক’ শট এখানে বিলাসিতা।







আসল কথা হলো রানটা কীভাবে আনলে দলের জন্য। যে ব্যাটসম্যান যত বেশি আগ্রাসী, তিনি তত বেশি সফল সীমিত ওভারের ক্রিকেটের ছোটো ফরম্যাটে। অবশ্যই ধারাবাহিকতা একটা বড় ফ্যাক্টর ক্রিকেটে। আর মারা কাটারি ক্রিকেট খেলায় ছন্দটা সবার আগে প্রয়োজন। কারণ, ব্যাটটা তখনই চলবে, যখন আত্মবিশ্বাসটা একশো শতাংশেরও অনেক ওপরে থাকে।







তবে এই মারকাটারি টুর্নামেন্টে বোলাররাও দেখান তাঁদের ঝলক। বোলারদের উপর তাণ্ডব চালায় ব্যাটসম্যানরা। যার প্রমাণ প্রতি আসরে উইকেট শিকারীদের তালিকা। যেখানে গতির জোড়ে ব্যাটসম্যানদের ঘুম হারাম করে দিয়েছেন এরকম বোলারও আছে। আবার স্পিন ঘূর্ণিতে ব্যাটসম্যানদের ঘুম হারাম করে দিয়েছেন এমন বোলারও আছেন।







প্রবীণ কুমারের ১০৭৬ ডট বল
আইপিএলের এক দশকে সবচেয়ে বেশি ডট বলের মালিক সাবেক ভারতীয় পেসার প্রবীণ কুমার। ১১৯ ম্যাচে ৪২০.৪ ওভার বল করে ৩২৫১ রানের পাশাপাশি ১০৭৬টি ডট বল করেছেন প্রবীণ







অমিত মিশ্রর তিন হ্যাটট্রিক
কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে পাঁচ উইকেট শিকার করাই মুশকিল। সেখানে হ্যাটট্রিকের কথা চিন্তা করা তো এক প্রকার আকাশের চাঁদকে হাতে নেওয়ার মত বিষয়। আর সেই কাজটাই এক-দুইবার নয় তিনবার করেছেন অমিত মিশ্রা। অমিত তাঁর হ্যাটট্রিকের খাতা খোলেন ২০০৮ সালের উদ্বোধনী আসরে। ২০১১ সালে আইপিএলের চতুর্থ আসরে দ্বিতীয়বার হ্যাটট্রিক করেন মিশ্রা। আর তৃতীয়বার হ্যাটট্রিক করেন ২০১৩ সালে। ১২৬ ম্যাচ খেলে মিশ্রের শিকার ১৩৪ উইকেট। চার উইকেট পেয়েছে ৩ বার এবং পাঁচ উইকেট একবার। সেরা বোলিং ১৭/৫।







লাসিথ মালিঙ্গা, ১৫৪ উইকেট
সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীদের তালিকায় সবার ওপরে আছেন শ্রীলঙ্কান গতি দানব লাসিথ মালিঙ্গা। এখন পর্যন্ত তার নামের পাশে ঝলঝল করছে ১১০ ম্যাচে ১৫৪ উইকেট। যা সবচেয়ে কম ম্যাচে বেশি উইকেট শিকারের রেকর্ড। মালিঙ্গা চার উইকেট শিকার করেছেন ৪ বার এবং পাঁচ উইকেট মাত্র একবার। সেরা বোলিং ১৩/৫।







সবচেয়ে বেশি পার্পল ক্যাপ জয়ী
আইপিএলের এক দশকে ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার ডোয়াইন ব্রাভো এবং ভারতের ভুবনেশ্বর কুমার সবচেয়ে বেশি দুইবার করে পার্পল ক্যাপ জিতেছেন। ব্রাভো ২০১৩ ও ২০১৫ সালের আসরে এবং ভুবি বিগত দুই বছর আইপিএলের পার্পল ক্যাপ জিতেছেন।







সোহেল তানভীরের ১৪ রানে ৬ উইকেট
আইপিএলের প্রথম আসরের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ছিলেন পাকিস্তানের সোহেল তানভীর। তখন ক্যারিয়ারের তুঙ্গে থাকা সোহেলের দূর্দান্ত বোলিংয়ে প্রথম আসরেই চ্যাম্পিয়ন হয় রাজস্থান রয়্যালস। সেই আসরে সোহেলের গড়া বোলিং রেকর্ড আজও অক্ষুণ্ণ। প্রথম পর্বে চেন্নাইয়ের বিপক্ষে চার ওভারে মাত্র ১৪ রান খরচায় শিকার করেন ৬ উইকেট। এরপর অ্যাডাম জাম্পা ছয় উইকেট পেলেও সেটা ছিল ১৯ রানের বিনিময়ে।







সুনীল নারিনের সর্বোচ্চ চার উইকেট এবং সেরা ইকোনমি রেট
আইপিলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি চার উইকেট শিকার করেছেন সুনীল নারিন। এক দশকে মোট ৬বার এই কীর্তি গড়েছেন এই ক্যারিবীয় রিস্ট স্পিনার। নারিন এর পাশাপাশি পাঁচ উইকেট শিকার করেছেন একবার। এই রেকর্ডের পাশাপাশি আইপিলের সেরা ইকোনমি বোলারও নারিন। তাঁর ইকোনোমি রেট ৬.৩২। তথ্যসূত্র: আইপিএল অফিসিয়াল ওয়েবসাইট

<>

Bangla24hour.com © 2017