[Close]

রুক্মিনীকে কবে বিয়ে করছেন? যা জানালেন দেব…


রুক্মিনীকে কবে বিয়ে করছেন? যা জানালেন দেব…<>

রুক্মিনীকে কবে বিয়ে করছেন- অবশেষে, আজ শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) মুক্তি পেল দেবের ‘কবীর’। ছবি মুক্তির আগে কবীর নিয়ে খোলামেলা আড্ডায় দেব। রুক্মিনীকে কবে বিয়ে করছেন? কথা বললেন রণিতা গোস্বামীর সঙ্গে যা জানালেন দেব…

কবীর থেকে বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি কী পাবে?

দেব- ‘কবীর’-এর পুরো বিষয়টাতেই নতুনত্ব রয়েছে। যদি তুমি বলিউডের দিকে দেখো তাহলে দেখবে কত নতুন নতুন কনসেপ্ট নিয়ে সিনেমা তৈরি হচ্ছে। তুমি যদি ‘প্যাডম্যান’ দেখো, ‘দঙ্গল’, ‘পদ্মাবত’, ‘টয়লেট এক প্রেম’ কথা দেখো, তাহলে দেখবে কত নতুন নতুন কনসেপ্ট নিয়ে ছবি হচ্ছে। রিয়েল লাইফ হিরোর উপর সুন্দর সুন্দর ছবি হচ্ছে।

আমার মনে হয় সেদিক থেকে আমারা অনেকটাই পিছিয়ে আছি। সেই একই সেন্টিমেন্টাল সিনেমা করে যাচ্ছি, একইরকম কমার্শিয়াল ছবি, সেই ব্যোমকেশ, কাকাবাবুতেই আটকে রয়েছি। একটু অন্যরকম কিছু করারও দরকার। আমার মনে হয়েছে আমি সেই রিস্কটা নিই, আর সেজন্যই ‘কবীর’। এরকম সিনেমা বাংলায় আগে হয়েছে বলে মনে পড়ছে না।

আমার তো মনে হয় বোম্বে সিরিয়াল ব্লাস্ট নিয়ে বাংলায় প্রথমবার কোনও ছবি হচ্ছে। যারা মূল অভিযুক্ত ছিল তাদের কীভাবে গ্রেফতার করা হল, কীভাবে পুরো মিশনটাকে সাজানো হল, পুরো বিষয়টাই সেটা নিয়ে। আশাকরি, ছবিটা দেখার পর অনেকেরই ভালো লাগবে, বুঝতে পারবে কী কনসেপ্টের উপর এই ছবি। আসলে এই ছবিতই আমাদের কাজই কথা বলবে।

‘দেব এন্টারটেইমমেন্ট ভেনচার্স’-এর প্রমোশন বরাবরই একটু হটকে। কখনও মাঝ আকাশে ‘ককপিট’-এর মিউজিক লঞ্চ তো, কখনও স্যান্ড আর্ট, এসটিএফ নিয়ে প্রচার হয়েছে। এসব কনসেপ্টই কি তোমার? এধরনের অভিনব প্রচারের কনসেপ্ট কীভাবে পেয়েছ?

দেব- না, আমি একা কিছুই করি না। আমাদের ৩-৪জনের একটা টিম রয়েছে। তন্ময়, সায়ন্তন, সায়ন, অমিত এই যে টিমের প্রত্যেক সদস্য আমার কাছে এক একটা স্তম্ভ। সবকিছু ‘দেব এন্টারটেইনমেন্ট ভেনচার্স’-এর এই টিম করে, আমি একা কিছুই না।

আর তাছাড়া আমার মনে হয়েছে প্রত্যেকটা ছবি একটা অন্যকথা বলে। তাই মনে হয় প্রত্যেক ছবির প্রচারও আলাদা ভাবে হওয়া উচিত। ‘ককপিট’-এর বিষয়টাই প্লেন নিয়ে ছিল। আর ‘কবীর’ এর বিষয়বস্তু কমান্ডো নিয়ে। এই ছবির মধ্যে দিয়ে সন্ত্রাসবাদের প্রতিবাদ করছি।

তাই আমার মনে হয়েছে এতে এসটিএফ-এর (স্পেশাল টাস্ক ফোর্স-কলকাতা পুলিস) লাইভ মিশন যদি আমরা প্রমোশনে দর্শকদের কাছে আনতে পারি, সেটা ভীষণ ভালো হবে। এজন্য এসটিএফ কলকাতার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। শুক্রবার ‘কবীর’-এর প্রথম স্পেশাল স্ক্রিনিং হবে এসটিএফ কলকাতার সদস্য ও তাঁদের পরিবারের জন্য।

কবীর শ্যুটিংয়ের কোনও অভিজ্ঞতা তোমার মনে সবথেকে বেশি দাগ কেটেছে?

দেব- প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে শ্যুটিংয়ের অভিজ্ঞতাই আলাদা, সেটা তুমি সিনেমাটা দেখলেই বুঝতে পারবে এবং একবার হলেও ভাববে যে এটা কীভাবে হল, ওটা কীভাবে করল?

বিশেষ করে ট্রেনে শ্যুটিংয়ের অভিজ্ঞতাটা সবথেকে অন্যরকম। তারপর ১৯৯২ সাম্প্রদায়িক হিংসার দৃশ্য দেখানো হচ্ছে, বাবরি মসজিদ নিয়ে আলোচনা, সবকিছুই বেশ অন্যরকম।

আমার মনে হয় এধরণের ছবি করার জন্য সাহস লাগে। একজন পরিচালকের ভাবনা, প্রযোজকের বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে সাহস লাগে। সেক্ষেত্রে অভিনেতা, অভিনেত্রীদের কাজটা অনেকটাই সহজ বলে আমার মনে হয়। তবে দর্শকরা ‘কবীর’ দেখে কী বলবে সেটা নিয়ে আমি খুব আগ্রহী।

অনিকেত চট্টোপাধ্যায় কিন্তু অভিনেতা দেবের থেকে মানুষ দেবকে বেশি নাম্বার দিয়েছেন। সেটা নিয়ে কী বলবে?

দেব- আমার সৌভাগ্য (টাচ উড, টাচ উড…হাসি)

আগে ফেসবুক থেকে শুরু করে সোশ্যাল সাইটে দেবকে নিয়ে অনেক ট্রোল পেজ ছিল যেগুলো আজকাল আর দেখা যায় না। সেই সমস্ত ট্রোলারদেরকে তুমি কি কিছু বলবে? বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে দেব নতুন কিছু দিচ্ছে বলেই কি ট্রোল পেজগুলো হারিয়ে যাচ্ছে?

দেব- আমি এসব নিয়ে একদমই ভাবি না। যে যা বলছে বলুক। আমার একটাই কথা যেভাবে বলিউড এগোচ্ছে, নানান ধরণের ছবি করছে তো আমরা কেন পারব না! সেসব ভাবতে ভাবতেই ‘চ্যাম্প’ হল, ‘ককপিট’ হল, ‘কবীর’ হল।

পরবর্তী কালে হইচই হবে সুভাষিণী দেবীকে নিয়ে সিনেমা হবে, বিনয় বাদল দীনেশকে নিয়ে সিনেমা তৈরি করার কথা ভাবছি। এসব নতুন নতুন বিষয় নিয়ে কাজ করতে চাই। বাকি ট্রোলাররা কে কী বলল আমার যায় আসে না।

এক সময় তুমি ‘পাগলু’, ‘চ্যালেঞ্জ’-এর মত সিনেমা করেছে, আর এখন এক্কেবারেই অন্য জনারের ছবি করছ, সেটা নিয়ে কী বলবে? দেব নিজে কী ধরণের ছবি করতে পছন্দ করে?

দেব- আমি সব ধরণের ছবি করতে চাই। আমি দেব এমন একজন হতে চাই যাকে কোনও একটা ধারায় বেঁধে রাখা যাবে না। শুধু বাণিজ্যিক ছবির সুপারস্টার নয়, অভিনেতা হিসাবে দেব নিজেকে এমনভাবে তৈরি করতে চায় যে সবধরণে ছবিতে সমান সাবলীল হবে।

জলের মতো, যে পাত্রে রাখবে সেই আকার নেবে। আমি এমন একজন হতে চাই যাঁর জনপ্রিয়তাও রয়েছে আবার সিনেমার বিষয়বস্তুতেও গুরুত্ব আছে।

অভিনেত্রী রুক্মিনীকে কতটা নম্বর দেবে?

দেব- রুক্মিনী আমার ভালো বন্ধু, আমার সবসময় মনে হয়েছে রুক্মিনী ভালো অভিনয়ও করতে পারবে। সেজন্যই পরপর তিনটে ছবিকে ওকে আমরা নিয়েছি। তবে ‘কবীর’-এর কথা যদি বলো তাহলে বলব সত্যিই ও ভীষণ ভালো কাজ করেছে।

দেব রুক্মিনী জুটি রিল লাইফে জমে গিয়েছে, রিয়েল লাইফে মানে বিয়ের পিঁড়িতে কবে দেখব?

দেব- (হাসি) দেখো এখন পৃথিবীতে এত কিছু হচ্ছে যে আমি কিছুই আগে থেকে বলতে পারি না। ভবিষ্যৎ নিয়ে কোনও কিছু বলতে পারা যায়নি। তবে এখন যেভাবে আছি, যা আছি ভালো আছি।

তুমি অভিনেতা দেব নাকি প্রযোজক দেব কাকে বেশি এগিয়ে রাখবে?

দেব- (হাসি) আমি না এত ভাবারই সময় পাই না। আমি কিছু একটা বললাম এখন তারপর দেখলাম ছবিটা চলল না, দর্শকই এল না তাহলে কী হবে। তাই আমি বিচার করার কেউ নই। আমি একটা যত্ন নিয়ে একটা ভালো ছবি বানানোর চেষ্টা করেছি, দর্শকই বিচার করবে।

অনিকেত চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কাজ করে কেমন লেগেছ?

দেব- উনি ভীষণ ভালো গল্প লিখতে পারেন, বলতেও পারেন। ওনার মধ্যে বৈচিত্র আছে। উনি কমেডি ছবিও বানিয়েছেন, ‘কবীর’-এর মতো গুরুগম্ভীর ছবিও বানাতে পারেন। আবার সুভাষিণী দেবীকে নিয়ে বায়োপিক বানানোর কথাও ভাবতে পারেন। এটাই দরকার।

প্রযোজক দেব, অভিনেতা দেব ছাড়া প্রসেনজিৎ, জিৎ, অঙ্কুশ বা অন্যান্যদের নিয়ে সিনেমা বানানোর কথা ভাববে?

দেব-যদি এমন কোনও গল্প থাকে যেখানে অন্য কাউকে কাস্ট করলে ভালো হবে তাহলে নিশ্চয় করব। তবে তাঁর আগে প্রযোজনা সংস্থাকে একটা ব্র্যান্ড বানাতে হবে। (হাসতে হাসতে) আরে আমার প্রযোজক হিসাবে একবছরও হয়নি, একটু সময় দাও।

আগে দর্শক কবীর দেখুক, আশাকরি ভালো লাগবে, তারপর পরবর্তী কথা ভাববো।

সূত্র :- জিনিউজ

The post রুক্মিনীকে কবে বিয়ে করছেন? যা জানালেন দেব… appeared first on Deshi News.

Bangla24hour.com © 2017