অবশেষে পরিণতি পেলো এই ‘অসম’ প্রেমিক জুটির! (বিয়ের অ্যালবামসহ)

‘অসম’ প্রেমিক জুটির- দীর্ঘদিনের প্রেম পর্ব অবশেষে পরিণয়ের রূপ নিল। লক্ষ লক্ষ ভারতীয় নারীর মন ভেঙে অঙ্কিতা কনওয়ারের ‘প্যায়ারা সোনিয়া’ হয়ে গেলেন ‘মেড ইন ইন্ডিয়া’ মিলিন্দ সোমন।

মিঞা-বিবি রাজি থাকলে যে কাজির কোনও ভূমিকাই থাকে না, সেটাই প্রমাণ করে দিলেন এই যুগল। বয়স তো নেহাত সংখ্যা ধরেই হাঁটুর বয়সি যুবতীর সঙ্গে নতুন করে ঘর বাঁধলেন তারকা।

তাঁরা কি গাঁটছড়া বাঁধতে চলেছেন? এমন জল্পনা চলছিল অনেকদিন ধরেই। ধোঁয়াশা মুছে দিল শনিবার তাঁদের বিবাহপর্বের একগুচ্ছ ছবি। চার বছরের প্রেম পর্বের শেষে বান্ধবী অঙ্কিতাকেই জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নিলেন ৫২ বছরের মিলিন্দ।

আলিবাগে পরিবার-আত্মীয় এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের উপস্থিতিতেই বিয়েটা সেরে ফেললেন তাঁরা। বিয়ের আচার মেনে গায়ে হলুদ, সংগীত সবই হল। আর প্রতিটি অনুষ্ঠানেই একে অপরের ভালবাসায় ডুবে রইলেন মিলিন্দ-অঙ্কিতা।

পরস্পরকে আলিঙ্গন করে ঘনিষ্ঠভাবে নাচতেও দেখা গেল তাঁদের। ‘বন জা তু মেরি রানি’ গানে নাচই যেন মিলিন্দের সব অনুভব ব্যক্ত করে দিল। কখনও লাল শাড়ি তো কখনও হলুদ লেহঙ্গায় ধরা দিলেন অঙ্কিতা।

আর নীল শেরওয়ানি হোক কিংবা সাদা পাঞ্জাবি, সবেতেই নিজের মাচো ম্যান লুক ধরে রাখলেন মিলিন্দ। মডেল-অভিনেতার আনন্দের দিন শামিল হয়েছিলেন তাঁর প্রাক্তন প্রেমিকা দীপান্বিতা শর্মাও। বর-কনে উভয়ের সঙ্গেই ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন ‘১৬ ডিসেম্বর’ ছবির নায়িকা।

নব্বইয়ে বেড়ে ওঠা যে কোনও কিশোরীকে তাঁর স্বপ্নের পুরুষের কথা জিজ্ঞেস করলে অবধারিত একটাই নাম উঠে আসবে, মিলিন্দ সোমন। বস্তুত সিক্স প্যাক জমানা শুরু হওয়ার আগে, সলমন খান জামা খুলে মাত করার অনেক আগেই, ভারতীয় পুরুষের সঠিক উদাহরণ তৈরি করে দিয়েছিলেন সুপারমডেল মিলিন্দ।

তাঁর কাছে বয়স রয়ে গিয়েছে সংখ্যা হয়েই। ৫২-তেও সুপারফিট তিনি। তবে এই বয়সে মিলিন্দ সোমনের সঙ্গে হাঁটুর বয়সি অঙ্কিতা কুনওয়ারের প্রেমকাহিনি নিয়ে নেটদুনিয়ায় কম মশকরা হয়নি।

যদিও সেসবকে কখনওই পাত্তা দেননি বলিউডের ‘আয়রন ম্যান’। বরং শরীরচর্চা করে ও বান্ধবীর সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করেই সময় কাটিয়েছেন। এবার বিয়ের পিঁড়িতে বসে বুঝিয়ে দিলেন, তাঁর পক্ষে অসম্ভব কিছুই নয়।

<>

Bangla24hour.com © 2017