নতুন এক নেশার নাম চিকন-মোটা

নেশার নাম চিকন-মোটা – ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার কিশোর-যুবকরা সব থেকে বেশি আক্রান্ত ক্রিকেট জুয়া চিকন-মোটা’র নেশায়। উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের বিভিন্ন বাজারের দোকানে গেলে দেখা যায় অনেকেই খুব উৎসুক হয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) খেলা দেখছেন।








এর মাঝেই লুকিয়ে রয়েছে চিকন-মোটার দল। সাধারণত নিচে পাঁচশ, উপরে লাখ পেরিয়ে য়ায় বাজির অঙ্ক। বিশ্বাস এদের মূল পুঁজি। বিশ্বস্ত মধ্যস্থতাকারীর কাছে টাকা জমা দেয়া হয়। মূলত মুঠোফোনের মাধ্যমে তিনিই নিয়ন্ত্রণ করেন এ খেলা।

বিনিময়ে তিনি কমিশন নিয়ে থাকেন। ক্রিকেটের দুর্বল দলটি সাংকেতিক নাম চিকন ও শক্তিশালী দলটি মোটা শব্দটি ব্যবহার করা হয়। এমন কি প্রতি বলে ছয়/চার/ কত রান হবে, উইকেট পড়বে, ওয়াইড বা নো বল হবে কিনা এ নিয়েও চলে বাজি।

চরভদ্রাসনে এর কুপ্রভাব পড়েছে জেলে, রিক্সা চালক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী,স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের উপরও। ক্রিকেট খেলতে গিয়ে সেখানেও বাজি ধরছেন অনেকে।








গত ২১ এপ্রিল চরহাজিগঞ্জ এলাকায় কয়েকজন কিশোরকে ক্রিকেট খেলতে দেখা যায়। কৌশলে তাদের থেকে জানা যায় ছয় শত টাকা বাজিতে চার ওভারের খেলা খেলছে তারা। এরকম দৃশ্য চরাঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে।

গত এক মাসে উপজেলার মাথাভাঙ্গা, চরসুলতানপুর, কানাইরটেক, জাকেরের সুরা, চরভদ্রাসন কলেজ মাঠ, চরহাজিগঞ্জ বাজার, চরভদ্রাসন বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে অনুসন্ধান করে ঘটনার সত্যতা মিলেছে।

আপাতদৃষ্টিতে টিভিতে খেলা দেখছে কিংবা মাঠে খেলছে মনে হলেও আসলে তাদের মূল আগ্রহ বাজি নিয়েই। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ব্যবসায়ী বলেন বলেন, ছোট ব্যবসা করি আমি, এই খেলার নেশায় পড়ে সর্বশান্ত হয়ে গেছি।

একদিন এক হাজার টাকা পেলে ওই লোভে আবার খেলতে ইচ্ছা করে। লাভের চেয়ে লোকসানই বেশি। তবে বড় বড় বাজিও ধরে টাকাওয়ালারা। এমনকি বিদেশ থেকে টাকা পাঠিয়ে বাজি ধরে। আমি এখন আর খেলি না। তবে এই খেলা বন্ধ করা সম্ভব না।








গাজীরটেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ইয়াকুব আলী বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে আমি জানতে পেরেছি। আমার বিভিন্ন ওর্য়াড মেম্বারদের বলেছি অভিভাবকদের সভার মাধ্যমে সচেতন করার জন্য।

চরভদ্রাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাম প্রশাদ ভক্ত বলেন, সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া পদক্ষেপ নেওয়া কঠিন। তারপরও আমরা বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান চালাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার বলেন, গত আইনশৃঙ্খলা সভায় ক্রিকেট জুয়ার ব্যপারে আলোচনা হয়েছে। গ্রাম পুলিশদের বিষয়টি পর্যবেক্ষণের নির্দেশ দিয়েছি। সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Bangla24hour.com © 2017